মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা দিবস নিয়ে প্রশ্ন উত্তর

২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা ঘোষনার পর থেকে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যেমে ১৬ ই ডিসেম্বর বিজয় অর্জিত হয়। মার্চ মাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কে রচনা প্রতিযোগীতা এবং সাধারণ জ্ঞানের কুইজ প্রতিযোগীতা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন ভর্তি ও চাকরির পরীক্ষায় যুদ্ধের ইতিহাস থেকে প্রশ্ন আসে। তাই আজ লিখবো মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর-

১. স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পতাকা কত তারিখে উত্তোলন করা হয়?

উত্তরঃ ১৯৭১ সালের ২ মার্চ ( ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবন প্রঙ্গনে এক ছাত্র সমাবেশে )

২. কে প্রথম বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেছেন?

উত্তরঃ তৎকালীন ছাত্রনেতা ডাকসু ভিপি আ স ম আবদুর রব

৩. বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার ডিজাইনার কে? তখন পতাকার লাল বৃত্তের মধ্যে কিসের প্রতীক ছিল?

উত্তরঃ কামরুল হাসান; বাংলাদেশের মানচিত্র

৪. কবে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ করা হয়?

উত্তরঃ ৩ মার্চ ১৯৭১ সালে পল্টন ময়দানে

৫. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ৭ ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ কোথায় দেন?

উত্তরঃ তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান)

৬. ৭ মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কয় দফা দাবি পেশ করেন?

উত্তরঃ ৪ দফা

৭. অপারেশন সার্চলাইট কবে হয়?

উত্তরঃ ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ মধ্যরাতে (বৃহস্পতিবার)

৮. অপারেশন সার্চ লাইট কি?

উত্তরঃ পাক হানাদার বাহিনী কর্তৃৃক বাংলাদেশীদের ওপর বর্বরোচি গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ

৯. কে কখন বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন?

উত্তরঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ ( ২৬ শে মার্চ কে স্বাধীনতা দিবস হিসাবে ঘোষণা করা হয় ১৯৮০ সালে)

১০. স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র স্থাপন করা হয় কবে?

উত্তরঃ ২৬ শে মার্চ ১৯৭১ সালে চট্টগ্রামের কালুরঘাটে।

১১. মুক্তি ফৌজ গঠন করা হয় কবে?

উত্তরঃ ৩রা এপ্রিল, ১৯৭১ সালে

১২. বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে মৃত্যুবরণকারী ইতালির নাগরিকের নাম কি?

উত্তরঃ মাদার মারিও ভেরেনজি ( ৪ এপ্রিল, ১৯৭১ সাল )

১৩. সর্বপ্রথম বাংলাদেশের স্বাধীন মন্ত্রীসভা গঠিত হয় কখন?/ বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার গঠিত হয়েছিলো কখন?

উত্তরঃ ১০ এপ্রিল, ১৯৭১ সালে

১৪. বাংলাদেশের প্রজাতন্ত্রী ঘোষণা করা হয়েছিলো কখন?/ বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার শপথগ্রহণ করেছিলো কখন?

উত্তরঃ ১৭ এপ্রিল, ১৯৭১ সাল (বৈধ্যনাথতলা, মেহেরপুর)

১৫. বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারের রাজধানী কোথায় ছিলো?

উত্তরঃ মেহেরপুর জেলার মুজিবনগরে

১৬. মুজিবনগর সরকারের রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন?

উত্তরঃ শেখ মুজিবুর রহমান

১৭. মুজিবনগর সরকারের প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন?

উত্তরঃ তাজউদ্দিন আহমেদ

১৮. মুজিবনগর সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন?

উত্তরঃ সৈয়দ নজরুল ইসলাম

১৯. মুজিবনগর সরকারের অর্থমন্ত্রী কে ছিলেন?

উত্তরঃ ক্যাপ্টেন এম. মনসুর আলী

২০. “ এ দেশের মাটি চাই, মানুষ নয়” – উক্তিটি কার?

উত্তরঃ জেনারেল ইয়াহিয়া খান

২১. মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি কে ছিলেন?

উত্তরঃ জেনারেল মোহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী (সংক্ষেপে জেনারেল এম এ জি ওসমানী)।

২২. মুক্তিযুদ্ধে সেক্টর কয়টি?

উত্তরঃ ১১ টি

২৩. মুক্তিযুদ্ধের সময় ঢাকা কোন সেক্টরের অধীনে ছিল?

উত্তরঃ দুই নাম্বর সেক্টর।

২৪. মুক্তিযুদ্ধের ব্যতিক্রমধর্মী সেক্টর কোনটি?

উত্তরঃ ১০ নং সেক্টর ( নৌ সেক্টর )

২৫. খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা কতজন?

উত্তরঃ ৬৭৬ জন। বীরশ্রেষ্ঠ ৭ জন, বীরউত্তম ৬৮ জন, বীরবিক্রম ১৭৫ জন ও বীর প্রতীক ৪২৬ জন।

২৬. দুইজন মহিলা বীরপ্রতীক কে ছিলেন?

উত্তরঃ তারামন বিবি ও ডা. সিতারা বেগম

২৭. একমাত্র বিদেশী বীরপ্রতীক কে?

উত্তরঃ নেদারল্যান্ড বংশোদ্ভুত অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক ডব্লিউ এ এস ওডারল্যান্ড

২৮. বাংলাদেশের সর্বকনিষ্ঠ খেতাবধারী মুক্তিযোদ্ধা কে?

উত্তরঃ শহীদুল ইসলাম (১১ বছর) বীর প্রতীক

২৯. বর্তমান মুজিবনগরের পূর্ব নাম কি ছিলো?

উত্তরঃ ভবেরপাড়া

৩০. মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন শেখ মুজিবকে কোথায় বন্দী করে রাখা হয়েছিল?

উত্তরঃ পাকিস্থানের করাচি শহরের মিয়ানওয়ালি কারাগারে। ( মুক্তি পান ৮ জানুয়ারি আর ১০ জানুয়ারি ১৯৭২ সালে দেশে পৌঁছান )

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *