ধনী হওয়ার ৩ মন্ত্র

ধনী কে না হতে চায়? কিন্তু ‍সকলে কি পারে ধনী হতে। বিশ্বে যারা সম্পদশালী তাদের ধনী হওয়ার পিছনে রয়েছে অনেক মন্ত্র। অনেক সাধনা। আজ আমরা জানবো ধনী হওয়ার এমন ৩ টি উপায়-

আয়ের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করতে হবে

বেশী আয় করার চিন্তায় বেকার না থেকে অল্প দিয়েই শুরু করুন।প্রয়োজনে কম বেতনের চাকরি দিয়ে শুরু করা। নিজের দক্ষতা বৃদ্ধি করা। বিকল্প আয়ের চিন্তা করা। আপনার পরিবেশ পরিস্থিতি অনুযায়ী আয়ের উৎস নির্ণয় করতে হবে। এরপর এগুলো থেকে অর্থ আয়ের প্রচেষ্টা চালাতে হবে। আপনি চাকরি করলে নিজের অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি করুন তাতে আপনার বেতন বৃদ্ধি বা প্রমোশনের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। আপনি যদি ব্যবসা করেন তবে সঠিক পরিকল্পনা করার মাধ্যমে আপনার ব্যবসায়ের প্রসার করতে হবে। এতে ব্যবসায়ের সফলতা বৃদ্ধি পাবে ফলে আয়ের সম্ভাবনা বাড়বে।

ব্যয় নিয়ন্ত্রন করতে হবে

আমরা বলি আয় অনুযায়ী ব্যয় করতে হবে। আসলে এর ফলে আমাদের হাতে কিছুই থাকে না। তাই আমাদের আয় থেকে কম ব্যয় করতে হবে। ফলে অটোমেটিক সঞ্চয় হয়ে যাবে।

মানুষের অভাব থাকবেই। তবে প্রয়োজনীয় অভাবগুলো পূরণ করার মাধ্যমে জীবন পরিচালনা করলে ব্যয় নিয়ন্ত্রনে চলে আসবে। বিনা প্রয়োজনে বা বিনা কারনে অর্থ ব্যয় করা উচিত নয়। কেনন ইহা মানুষকে নিঃস্ব করে দেয়। আপনার হাতে যখন টাকা থাকবে না তখন অনেক পরিচিত মুখও অপরিচিত মনে হবে। কাছের মানুষগুলোকে দূরের মনে হবে। আপন মানুষও পর হয়ে যাবে। তাই ব্যয় সীমিত করার মাধ্যমে সঞ্চয় করুন।

বিনিয়োগ করতে হবে এখনি

সঞ্চিত অর্থগুলোকে সঠিক স্থানে বিনিয়োগ করুন। এতে করে আপনার সফলতা বৃদ্ধি পাবে। তবে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে ভাবনাচিন্তা করে এরপর বিনিয়োগ করতে হবে।

বিনিয়োগ অনেকভাবে হতে পারে। যেসব বিনিয়োগে ঝুঁকি কম কিন্তু লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা বেশী সেগুলোকে টার্গেট করতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে বিনিয়োগে লোকসান হলে আপনি যেন ফকির না হয়ে যান। এজন্যে আপনাকে এমনভাবে বিনিয়োগ করতে হবে যাতে ক্ষতি হলেও আপনি ঘুরে দাড়াতে পারেন।

ধনী হওয়ার জন্য অসৎ পথে টাকা আয় করা যাবে না। সৎভাবে আয় করে আর কঠোর পরিশ্রম, চেষ্টা সাধনা করলেই ধনী আপনি হবেনই। রাতারাতি বড়লোক হওয়ার স্বপ্ন না দেখাই ভালো। পৃথিবীতে আজ যারা বিত্তবান তাদের পিছনের ইতিহাস দেখলেই বুঝতে পারবেন তারা কীভাবে বড়লোক হয়েছে।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।