ত্বকের যত্নে শুকনো ফল

সুন্দর ত্বকের জন্য ক্রীম ব্যবহার করেন না এমন মানুষ খোঁজে পাওয়া মুশকিল। তবে শুধু ক্রীম ব্যবহার নয়, ত্বকের সৌন্দর্যের জন্য চাই ভেতর থেকে পুষ্টিগুণ। আর এই পুষ্টির মূল উৎস হলো খাদ্য। খাদ্যের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ফল। ত্বকের লাবণ্য বৃদ্ধিতে ফলের জুড়ি নেই। ত্বকের জন্য কাঁচা ফল সবচেয়ে বেশী উপকারী হলেও কিছু শুকনা ফল আছে যেগুলো ত্বককে ভেতর থেকে আকর্ষণীয় করে তুলে। শুকনা ফল বা ড্রাই ফ্রুটস এ থাকা ভিটামিন, ফ্যাট, প্রোটিন চামড়ার উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সহায়ক। এমন কিছু শুকনো ফল হলো-

খেজুরঃ

শুকনো খেজুরে আছে ভিটামিন – সি। ইহা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ত্বকের টান-টান ভাব ঠিক রাখে। এছাড়াও চামড়ার কোমলতা বজায় রাখতে সাহায্য করে।

চীনাবাদাম ঃ

হাটঁতে হাটঁতে, পার্কে বসে কিংবা যানবাহনে বাদাম খায়নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। চানাচুর বা ঝালমুড়ি কিংবা সেমাই-তে চীনাবাদাম অন্যতম প্রধান উপাদান হিসাবে ব্যবহৃত হয়। চীনাবাদাম এ আছে ভিটামিন -ই যা ত্বকের কালো ছোপ পড়া থেকে ত্বককে রক্ষা করে। চামড়ার উজ্জ্বলতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। চীনাবাদামে থাকা প্রোটিন এবং অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট উপাদান ত্বকের কোমলতায় কাজ করে।

কাজুবাদামঃ

কাজুবাদাম খেতে অনেক মজা। এটি মুখের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। এতে রয়েছে কপার, নিয়াসিন ও অনেক উপকারী উপাদান। এগুলো ত্বককে পিগমেন্টেশন, ডার্মাটাইটিস সমস্যা থেকে মুক্ত রাখে।

কাঠবাদামঃ

কাঠবাদাম ক্যালরির অন্যতম উৎস। এটি কলেস্টরল নিয়ন্ত্রণ রাখতে সহায়তা করে। এতে থাকা ভিটামিন -ই ত্বকের উজ্জ্বলতা ও কোমলতা উভয় বৃদ্ধি করে। কাঠবাদামের তেল ত্বকে ম্যাসাজ করলে ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। যার কারণে ত্বকের পুষ্টি ও সুস্থতা বজায় থাকে।

পেস্তাবাদাম ঃ

অনেকের ত্বকের শুষ্কতা সমস্যা থাকে। তাদের জন্য পেস্তাবাদাম উপকারী। এতে থাকা মনো – আনস্যাচুরেটেড ফ্যাট কোলেস্টেরল কমাতে সহায়তা করে। পেস্তাবাদামে রয়েছে ভিটামিন বি- ৬ যা ত্বককে আর্দ্রতা প্রদান করে। এছাড়া ও এটি ত্বকের গ্রোথেও সহায়তা করে।


আখরোট ঃ

আখরোট বাদাম জাতীয় এক প্রকার ফল। ত্বকের যত্নে আখরোট অনেক উপকারী। এতে থাকা ক্যালরি, ফ্যাটি অ্যাসিড ওমেগা -৩, ভিটামিন, মিনারেলসস এবং প্রোটিন ত্বকের ক্ষয় রোধ করে। তাছাড়া অ্যান্টি এজিং হিসাবে ক্রিয়া করে।

কিশমিশ ঃ

আঙ্গুর ফলকে শুকালে কিশমিশ হয়। এতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন -এ এবং বিভিন্ন খনিজ, যা ত্বককে অ্যান্টিএজিং, কোমল ও পুষ্টি করে তোলে।


ত্বকের যত্নে কাঁচা ফলের পাশাপাশি শুকনো ফলও আমাদের খাবার তালিকায় রাখা উচিত। কেননা ড্রাই ফ্রুটস স্ক্রিনের জন্য অনেক উপকারী। এতে ভেতর থেকে আমাদের ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, কোমল ও আকর্ষণীয় এবং পুষ্ট। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *