চুলপড়া বন্ধের উপায়

অল্প বয়সে চুলপড়ার কারণ ও চুলপড়া রোধে করণীয়

চুল আমাদের দেহের গুরুত্বপূর্ণ একটি সৌন্দর্যবর্ধনকারী অংশ। অনেকের দ্রুত চুল পড়ার সমস্যা রয়েছে।আজকে চুলপড়ার সাধারণ কিছু কারণ এবং এর প্রতিকার নিয়ে আলোচনা করবো। নিচে চুল পড়ার বেশকিছু কারণ ও প্রতিকার দেওয়া হলোঃ

  1. কিছু হরমোনাল সমস্যার কারণে চুল পড়তে পারে। তাই নিয়মিত কিছুসময় ব্যায়াম করে আপনার হরমোনাল ভারসাম্য ঠিক রাখুন।এবং ব্যায়ামের সাথে সাথে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন।
  2. অনেকের চুলের গোড়া শুষ্ক হওয়ার কারনে চুল পড়তে পারে। তাই গোসল করার ৩০ মিনিট আগে চুল নারকেল তেল দিয়ে ভিজিয়ে রাখার পর শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলবেন। তাছাড়া “ক্যাস্টর অয়েল” ভালভাবে চুলে ম্যাসেজ করলে চুলপড়া অনেকাংশে কমে যায়।
  3. মেহেদী পাতার মধ্যে চুলের গোড়া শক্ত করার উপাদান বিদ্যমান। মেহেদী পাতার পিষে ডিমের সাদা অংশের সাথে মিশ্রণ করে মাথায় লাগাতে পারেন। ২০-৩০ মিনিট চুলে রাখার পর ধুয়ে ফেলবেন।তাহলে উপকার পেতে পারেন।
  4. অনেকের বংশগত/জ্বিনগত কারণে চুল পড়তে পারে। এক্ষেত্রে প্রচুর পরিমানে ভিটামিনযুক্ত শাকসবজি খেতে পারেন। তাছাড়া বেশী বেশী ভিটামিন-ই জাতীয় খাবার খাবেন।
  5. অনেকের ভেজা চুল আঁচড়ানোর অভ্যাস আছে। একারণে চুল পড়তে পারে। তাই গোসল করার পর চুল ভালভাবে শুকিয়ে তারপর আঁচড়াবেন। তাছাড়া নিয়মিত চুল আঁচড়ালে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়।ফলে চুলের গোড়া শক্ত হয়।
  6. চুলপড়া রোধ করার আরেকটি প্রাকৃতিক উপদান পেয়াজের রস। পেয়াজের রসে চুলপড়া রোধ এবং চুলের গোড়া শক্ত করার বিশেষ উপাদান রয়েছে।

উপরের নিয়মগুলো মেনে চললে আপনার চুলপড়া অনেকাংশে কমে যাবে। তবে প্রতিদিন একজন স্বাভাবিক মানুষের ১০০-১৫০ টি চুল পড়ে।কিন্তু এটা নিয়ে হতাশার কোন কারণ নেই। নিয়মিত সুষম খাবার চালিয়ে যান,নিজেকে আত্মবিশ্বাসী রাখুন এবং সুস্থ থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.