ই’তিকাফ কি

আরবি ই’তিকাফ শব্দের মানে অবস্থান করা, থেমে থাকা, আটকে থাকে, হাঁটু গেড়ে বসে থাকা ইত্যাদি। অর্থাৎ রমজানের শেষ ১০ দিন শুধু আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্যে মসজিদে অবস্থান করাকে ই’তিকাফ বলে। আল্লাহ তায়ালা বলেন-
“যতক্ষণ তোমরা ই’তিকাফের অবস্থায় মসজিদে অবস্থান করবে ততক্ষণ পর্যন্ত স্ত্রীর সাথে মিলিত হয়ো না”। (সূরা বাক্বারাঃ১৮৭) Etikaf ki

ই’তিকাফ এর পালনীয় শর্তসমূহ

  • মসজিদ বা ঘরের নির্দিষ্ট অংশে অবস্থান করতে হবে।
  • জরুরী প্রয়োজন অর্থাৎ প্রস্রাব-পায়খানা ব্যতীত মসজিদের বাইরে অবস্থান করা যাবে না।
  • দুনিয়াবি কাজ-কর্ম করা যাবে না।
  • স্ত্রীর সাথে মিলন বা এরূপ কোন কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • ইসলামি জ্ঞানার্জন, জ্ঞান চর্চা ও ইবাদতে সবসময় নিযুক্ত থাকতে হবে।

ই’তিকাফ কত প্রকার

ই’তিকাফ সাধারণত ২ প্রকার। যথাঃ-

১. মান্নত করে যদি ই’তিকাফ করা হয় তবে তা – ওয়াজিব।
২. রমজানের শেষ ১০ দিন ই’তিকাফ করা – সুন্নাতে মুআক্কাদা।
তবে এছাড়া কেউ যদি ই’তিকাফ করে তবে তা – মুস্তাহাব হবে।

কত দিন ই’তিকাফ করতে হয়

  • কোন কোন হাদীস অনু্যায়ী ই’তিকাফের সর্বনিম্ন সময়সীমা ১ রাত বলে উল্লেখ আছে।
  • রমজানের শেষ ১০ দিন ই’তিকাফ করা সুন্নাত। রাসূল (স.) রমজানের শেষ দশ দিন ই’তিকাফ করতেন। এমনকি জীবনের শেষ রমজান মাসেও তিনি ই’তিকাফ করেছেন।

আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে জীবনে একবার হলেও ই’তিকাফ করার তৌফিক দান করুন। আমিন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।